“রোবটিক্স” বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিল আইসিটি বিভাগের আইডিয়া প্রকল্প

টেকআলো প্রতিবেদক:
২৯ জুন ২০২০ সোমবার অনলাইনে “রোবটিক্স” বিষয়ে একটি দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ আয়োজন করে “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প আইডিয়া”। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের আওতায় আইডিয়া প্রকল্পের “এডুকেশন ফর ন্যাশন” এর আওতায় ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে এই প্রশিক্ষণটি শুরু হয়। এই আয়োজনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম পিএএ। অনলাইনের মাধ্যমে প্রশিক্ষণের উপকারিতা সম্পর্কে ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, স্বাভাবিক সময়ের প্রশিক্ষণের থেকে অনলাইনে প্রশিক্ষণ পদ্ধতি অনেকটা বেশি ইন্টারেক্টিভ হতে দেখা যাচ্ছে। বর্তমান যুগে ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজি বিষয়ে অভিজ্ঞ ও দক্ষ কর্মীদের চাহিদা ও মূল্য বেড়েছে। আমাদের জনশক্তিকে সম্পদে রূপান্তর করতে চাইলে ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজি বিষয়ে অভিজ্ঞ ও দক্ষ কর্মীদের গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনায় এনে সেভাবেই চিন্তা করতে হবে। তাই ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজির উপর অবশ্যই আমাদের দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে হবে। সেই বিবেচনায় বাংলাদেশের আইটি প্রতিষ্ঠান এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সেভাবেই তৈরী হচ্ছে বলে তিনি মনে করছেন। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন যে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে সেটিকে বাস্তব জীবনে কাজে লাগাতে হবে। প্রয়োজনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে সংযুক্ত হয়ে সেগুলোর সঠিক ব্যবহার ও চর্চা করতে হবে।

বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) এর নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেব। তিনি বলেন, শুরুর দিকে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের তাৎপর্য সঠিকভাবে অনেকেই বুঝে উঠতে না পারলেও এই করোনা পরিস্থিতিতে এর প্রয়োজনীয়তা অনেকেই বুঝতে পেরেছেন। এই কোভিড-১৯ এর তান্ডবেও আমাদের টিকে থাকার অন্যতম একটি কারণ হলো তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যবহার। প্রযুক্তি ব্যবহার করেই আমাদের সকল প্রকার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে আমাদের যে জ্ঞানভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্য রয়েছে, সেই লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য এই ধরনের প্রযুক্তিগত প্রশিক্ষণ গ্রহণ ও জ্ঞান অর্জন অত্যন্ত প্রয়োজন বলে তিনি মনে করছেন।

অনলাইন অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন আইডিয়া প্রকল্পের পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) সৈয়দ মজিবুল হক। তিনি করনা ভাইরাসের পরিস্থিতিতে আইডিয়া প্রকল্পের বিভিন্ন গৃহীত কার্যক্রমের বর্ণনার মাধ্যমে প্রযুক্তি ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে তুলে ধরেন। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে বিশেষ করে তরুণদের অবশ্যই জ্ঞান অর্জনের জন্যে প্রযুক্তিগত বিভিন্ন প্রশিক্ষণের সাথে সংযুক্ত থাকতে হবে। প্রশিক্ষণের কোন বিকল্প নেই। তাই আইডিয়া প্রকল্পের মাধ্যমে ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজি সম্পর্কে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে তিনি জানান।

এই প্রশিক্ষণটিতে রিসোর্স পারসন হিসেবে ৩ জন অভিজ্ঞ প্রফেশনাল সংযুক্ত হন। অতিথিদের বক্তব্য শেষে প্রথমেই “এক্সপেরিমেন্টাল রোবটিক্স” বিষয়টি নিয়ে প্রশিক্ষণ দেন খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের প্রফেসর ড. এম. এম. এ. হাসেম। পরবর্তীতে, রোবটিক্স ও অটোমেশনের লার্নিং চ্যালেঞ্জসমূহ নিয়ে বিস্তারিত উপস্থাপনা প্রদান করেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)-এর ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের অধ্যাপক ও ইন্সিটিটিউট অব নিউক্লিয়ার পাওয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং (INPE) এর পরিচালক ড. শেখ আনোয়ারুল ফাত্তাহ। সবশেষে, “রোবটিক্স প্রযুক্তির ভবিষ্যৎ” নিয়ে রিসোর্স পারসন হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স এন্ড মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. লাফিফা জামাল। সবার জন্য এই পুরো আয়োজনটি “স্টার্টআপ বাংলাদেশ” এর অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে লাইভ সম্প্রচার করা হয়। দিনব্যাপী এই প্রশিক্ষণে খুলনা বিভাগের প্রায় ৫০ জনের অধিক প্রশিক্ষণার্থী অনলাইন প্ল্যাটফর্ম জুমের মাধ্যমে এই প্রশিক্ষণে অংশ নেন।

আইডিয়া প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক (উপসচিব) কাজী হোসনে আরা, প্রকল্পের সিনিয়র পরামর্শক আর এইচ এম আলাওল কবির, প্রকল্পের পরামর্শক আদনীন জেরিন, শারমিন আকতার সাজ, কমিউনিকেশনস্ বিষয়ক পরামর্শক সোহাগ চন্দ্র দাস-সহ খুলনা বিভাগের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীসহ শিক্ষকগণ, বিসিসি ও আইসিটি বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ এসময় অনলাইনে উপস্থিত ছিলেন। আগামী ০১ জুলাই ২০২০ বুধবার সকাল ১০টায় অনলাইনে “ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি)” বিষয়ে পরবর্তী প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হবে। আয়োজনটি “স্টার্টআপ বাংলাদেশ” এর অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে (https://www.facebook.com/LetsStartupBD/ ) লাইভ সম্প্রচারিত হবে অর্থাৎ আগ্রহীগণ সরাসরি অংশ নিতে পারবেন।